Lesson 2 of 140
In Progress

কারবারের সংজ্ঞাঃ (Definition of Business)

মুনাফা লাভের উদ্দেশ্যে, ঝুঁকি ও অনিশ্চয়তার মধ্যে দিয়ে যে অর্থনৈতিক ক্রিয়াকলাপে মানুষ নিযুক্ত থাকে তাকে কারবার বলা হয়। কিন্তু কোন বস্তু একবারমাত্র বিনিময়ের মধ্যে দিয়ে মুনাফা অর্জন করলেই সেটিকে কারবার বলা যায়না। এই কাজ যদি ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকে তবেই তাকে কারবার নাম দেওয়া যেতে পারে।

বিভিন্ন বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন সময়ে কারবারের বিভিন্নরকম সংজ্ঞা দিয়েছেন। তার মধ্যে থেকে আমরা দুটি দৃষ্টিকোণ থেকে কারবারের সংজ্ঞা নির্দেশ করতে পারি। যেমন- (i) প্রতিষ্ঠানভিত্তিক সংজ্ঞা ও (ii) ক্রিয়াভিত্তিক সংজ্ঞা।

  • প্রতিষ্ঠান-ভিত্তিক সংজ্ঞাঃ (Enterprise-based Definition)
    কারবারি প্রতিষ্ঠানের বা সংগঠনের উপর গুরুত্ব আরোপ করে যদি কারবারের সংজ্ঞা দেওয়া হয়, তাহলে তাকে কারবারি প্রতিষ্ঠানভিত্তিক সংজ্ঞা বলে। এই দৃষ্টিকোণ থেকে ‘কারবার হল সেই প্রতিষ্ঠান যা বাজারে পণ্য বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে পণ্য উৎপাদন বা ক্রয় করে ও মূল্যের বিনিময়ে পণ্য ও সেবা সরবরাহ করে’।

বিভিন্ন ব্যাবস্থাপকবিদ-দের মতানুযায়ীঃ

আরউইক এবং হান্ট (Urwick & Hunt) – এর মতে, “কারবার হল এমন একটি প্রতিষ্ঠান যা পণ্য বা সেবা উৎপাদন অথবা বণ্টন করে এবং যেগুলি সমাজের অন্যান্য ব্যক্তিরা প্রয়োজন অনুযায়ী দাম দিয়ে ক্রয় করতে সক্ষম ও সন্মত হয়।”

অধ্যাপক পি. এফ. ড্রাকার (Proff. P.F.Drucker) – এর মতে, “যে কোন প্রতিষ্ঠান বা পণ্য সামগ্রী বা সেবা বিপণনের মাধ্যমে পরিপূর্ণতা লাভ করে, তা-ই কারবার।“

অধ্যাপক এন. আর. ওয়েন (Proff. R.N.Owens) – এর মতে, “কারবার বলতে এমন একটি প্রচেষ্টাকে বোঝায় যা বাজারে বিক্রয়ের জন্য পণ্য উৎপাদন ও বণ্টনে লিপ্ত থাকে অথবা মূল্যের বিনিময়ে সেবা পরিবেশন করে।“

বি. ও. হুইলার (B.O.Wheeler) – এর মতে, “কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর মালিকানায় যে সংস্থা, উদ্যোগ বা কোম্পানি ক্রয়-বিক্রয় করে এবং একগুচ্ছ সুনির্দিষ্ট কর্মনীতি অনুসারে পরিচালিত হয় তাকেই কারবার বলে।“

ডব্লু. আর. স্প্রগেল (W.R.Spriegel) – এর মতে, “পণ্য ও সেবার উৎপাদন ও বণ্টন কারজে যুক্ত সমস্ত কার্যাবলীকেই কারবারি কার্যকলাপ বলা হয়।“

  • ক্রিয়া-ভিত্তিক সংজ্ঞাঃ (Functional Definition)
    যে সমস্ত ব্যাবস্থাবিদ কারবারের সংজ্ঞাতে কারবারের কাজকর্মের উপর বেশি গুরুত্ব আরপ করেছেন, সে সমস্ত সংজ্ঞাগুলিকে কারবারের ক্রিয়াভিত্তিক সংজ্ঞা বলা হয়। সুতরাং ক্রিয়াভিত্তিক সংজ্ঞাগুলির কেন্দ্রে রয়েছে কারবারি কার্যকলাপ। অর্থাৎ কারবার হল সেইসব মানবিক কার্যকলাপ যা পণ্য বা সেবা বিক্রয়ের বা কারবারের ক্রিয়াভিত্তিক সংজ্ঞার মধ্যে কয়েকটি নীচে তুলে ধরা হল।

বিভিন্ন ব্যাবস্থাপকবিদ-দের মতানুযায়ীঃ

এল. এইচ. হ্যানি (L.H.Haney)– এর মতে, “ক্রয়-বিক্রয়ের মাধ্যমে সম্পদ সৃষ্টি অথবা সংগ্রহ করার উদেসশে মানুষ যেসব কাজ করে থাকে তাকেই বলে কারবার।“

এম. সি. নটন (M.C.Naughton)– এর মতে, “কারবার কথাটির অর্থ হল পারস্পরিক সুবিধালাভের আশায় পণ্যসামগ্রী, অর্থ বা সেবার বিনিময়।“

পিটারসন ও প্লাউম্যান (Peterson & Plowman)– এর মতে, “কারবার হল এমন এক কার্যকলাপ যাতে বিভিন্ন মানুষ পারস্পরিক লাভ বা সুবিধার জন্য কিছু মূল্যের বিনিময়ে পণ্য বা সেবার বিনিময় করে।“

অধ্যাপক এম. সি. শুক্লা (Proff. M.C.Shukla)– এর মতে, “যেসব মানবিক কার্যকলাপ পণ্য উৎপাদন বা ক্রয়ের সাথে যুক্ত এবং যার উদ্দেশ্য হল পণ্যগুলি লাভে বিক্রয় করা।“

অধ্যাপক এস. এস. চ্যার্টার্জি (Proff. S.S.Chaterjee)– এর মতে, “বিক্রেতার উৎপাদিত অথবা অন্যের কাছ থেকে নির্দিষ্ট আকারে সংগৃহীত পণ্যসামগ্রী ও সেবার বারংবার বিক্রয়কেই কারবার বলে।“

উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ (W. B. C. H. S. E)– এর মতে, “পুনঃপুনঃ বিনিময়ের মাধ্যমে যে কাজকর্ম সমাজবদ্ধ মানুষের অভাবমোচনের উদ্দেশ্যে মূল্য বা উপযোগিতা সৃষ্টির দিকে পরিচালিত হয় তাকে কারবার বলে।“

উপরোক্ত সকল সংজ্ঞা গুলি থেকে আমরা দেখতে পাই যে, কারবার বলতে যেমন কোন কারবারি সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানকে বুঝি, তেমনই কারবার বলতে কারবারি ক্রিয়াকলাপকেও বোঝায়।

সবশেষে কারবারের সংজ্ঞা হিসাবে আমরা বলতে পারি যে, “একটি অর্থনৈতিক ক্রিয়াকলাপ যা সৃষ্টির মূলে রয়েছে মানুষের অভাব মোচনের চেষ্টা এবং তার দ্বারা মুনাফা অর্জন, তাকেই কারবার বলে।

error: Content is protected !!